ঢাকা ০৫:২৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দৈনিক নয়ালোক ওয়েব ম্যাগাজিনের উদ্বোধনী দিনের প্রথম প্রকাশ:

উদ্বোধনী কবিতাঃ- “সৃষ্টির দিনে” – সুনির্মল ঘোষ।

SRI Bonsai
  • আপডেট সময় : ১২:২১:২৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ জুন ২০২৩
  • / ৫১৮৪ বার পড়া হয়েছে

সৃষ্টির দিনে

       (নয়ালোকের উদ্বোধনে)

              ― সুনির্মল ঘোষ

 

এই বার লাট্টুটা ঘুরবে ।

পৃথিবীটা ঘুরছে বনবন,

নিজস্ব কক্ষপথে আহ্নিক গতিতে।

লাট্টুও ঘুরবে নিজস্ব ভাবনায়, চিন্তনে।

পৃথিবীটা ছেয়ে আছে সার্কাসের তাঁবুতে।

লাট্টুটা সব তাঁবু ছিঁড়ে জোকারের হাসির গলা টিপে

আসল দুঃখটাকে তুলে নিয়ে আসবে।

কখনোবা লাট্টুটা ছুটে যাবে বিবর্ণ বালকের ছাউনিতে।

হাঁড়ির ভাতগুলো টিপে দেখবে,

ভাত কতটা পচে গ্যাছে।

ছুটে যাবে বাগানের আনাচে-কানাচে,

ফুলগুলো উল্টে উল্টে দেখবে

কোন ফুলে কতটা ভালবাসার কথা লেখা আছে।

ছুটে যাবে রণাঙ্গনে, দুস্তর মরুভূমিতে বা বরফের রাজ্যে।

ছায়াছবি তুলে আনবে

কঠিন কঠিন মুখগুলিতে কতটা ভালোবাসা লেখা আছে।

 

লাট্টুটা ঘুরবেই ঘুরবেই।

কবিরা তোমরা সব বড়ো বড়ো চশমা এঁটে যন্ত্রণার ছবি এঁকো।

ভালোবাসার পাত্র নিয়ে নির্জনে অন্ধকারে

প্রেমিক প্রেমিকার কাছে যেও।

 

হাতের ইশারায় লাট্টু তোমাকে দেখাবে পথ।

সেইদিকেই ছুটিও তোমার গর্বের রথ।

 

লাট্টুর নাম থাক নয়ালোক।

সকলের কণ্ঠ নিয়ে আজ তার জন্ম হোক।

শেয়ার করুন :

আপলোডকারীর তথ্য

দৈনিক নয়ালোক ওয়েব ম্যাগাজিনের উদ্বোধনী দিনের প্রথম প্রকাশ:

উদ্বোধনী কবিতাঃ- “সৃষ্টির দিনে” – সুনির্মল ঘোষ।

আপডেট সময় : ১২:২১:২৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ জুন ২০২৩

সৃষ্টির দিনে

       (নয়ালোকের উদ্বোধনে)

              ― সুনির্মল ঘোষ

 

এই বার লাট্টুটা ঘুরবে ।

পৃথিবীটা ঘুরছে বনবন,

নিজস্ব কক্ষপথে আহ্নিক গতিতে।

লাট্টুও ঘুরবে নিজস্ব ভাবনায়, চিন্তনে।

পৃথিবীটা ছেয়ে আছে সার্কাসের তাঁবুতে।

লাট্টুটা সব তাঁবু ছিঁড়ে জোকারের হাসির গলা টিপে

আসল দুঃখটাকে তুলে নিয়ে আসবে।

কখনোবা লাট্টুটা ছুটে যাবে বিবর্ণ বালকের ছাউনিতে।

হাঁড়ির ভাতগুলো টিপে দেখবে,

ভাত কতটা পচে গ্যাছে।

ছুটে যাবে বাগানের আনাচে-কানাচে,

ফুলগুলো উল্টে উল্টে দেখবে

কোন ফুলে কতটা ভালবাসার কথা লেখা আছে।

ছুটে যাবে রণাঙ্গনে, দুস্তর মরুভূমিতে বা বরফের রাজ্যে।

ছায়াছবি তুলে আনবে

কঠিন কঠিন মুখগুলিতে কতটা ভালোবাসা লেখা আছে।

 

লাট্টুটা ঘুরবেই ঘুরবেই।

কবিরা তোমরা সব বড়ো বড়ো চশমা এঁটে যন্ত্রণার ছবি এঁকো।

ভালোবাসার পাত্র নিয়ে নির্জনে অন্ধকারে

প্রেমিক প্রেমিকার কাছে যেও।

 

হাতের ইশারায় লাট্টু তোমাকে দেখাবে পথ।

সেইদিকেই ছুটিও তোমার গর্বের রথ।

 

লাট্টুর নাম থাক নয়ালোক।

সকলের কণ্ঠ নিয়ে আজ তার জন্ম হোক।